1. [email protected] : mainadmin :
  2. [email protected] : Mohsin Molla : Mohsin Molla
  3. [email protected] : subadmin :
বাংলার চোখ নিউজ | অনলাইন সংস্করণ | কম দামে সবজি বিক্রি হওয়ায় নরসিংদীর কৃষকরা বিপাকে
বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:০২ পূর্বাহ্ন

কম দামে সবজি বিক্রি হওয়ায় নরসিংদীর কৃষকরা বিপাকে

বাংলার চোখ সংবাদ
  • সময়ঃ শনিবার, ৩১ জুলাই, ২০২১

বশির আহম্মেদ মোল্লা (নরসিংদী) প্রতিনিধি : 

লকডাউনে সবজির চাহিদা থাকলেও অনেক কমে দামে বিক্রি হচ্ছে। এতে নরসিংদী জেলার কৃষকেরা বিপাকে পড়েছেন। ফলে খুব কম দামে চাষীরা স্থানীয় বাজারে সবজি বিক্রি করতে হচ্ছে। দেশের কৃষকদের দেখার কেউ নাই। এ ব্যাপারে সরকার দ্রুত পদক্ষেপ না নিলে সবজি চাষীদের পথে বসতে হবে।

নরসিংদীতে উৎপাদিত সবজি এ জেলার চাহিদা মিটিয়ে রাজধানীসহ বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় সরবরাহ হত নরসিংদীর সবজি। লকডাউনের কারণে এবং যানবাহন চলাচল সীমিত হওয়ায় নরসিংদী থেকে সবজি এখন বিভিন্ন জেলায় সরবরাহ বন্ধ থাকায় চাষীরা সবজি নিয়ে হতাশায় ভুগছে। ফলে স্থানীয় বাজারে এর চাহিদা কমে যাওয়ায় এখন কম দামে বেচা-কেনা হচ্ছে।

এদিকে সুযোগটি কাজে লাগাচ্ছে মধ্যসত্বভোগীরা। এমনিতেই সবজির বাজার দর কম। লকডাউনে মধ্যসত্বভোগীরা আরও কম দামে সবজি বিক্রি করতে বাধ্য করছে স্থানীয় কৃষকদের লোকসান গুনতে হচ্ছে।

নরসিংদীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, ঢেঁড়স প্রতি কেজি ১০ টাকা, শসা প্রতি কেজি ২০/২৫ টাকা, করলা ২৫/২৬, প্রতিটি লাউ ২০/২৫, বেগুন প্রতি কেজি ২০/২২, প্রতি কেজি ঝিঙ্গা ২০ টাকা, চিচিঙ্গা ২০/২২ টাকা, বরবটি ২৫/২৬ টাকা, কাকরোল ২০/২২ টাকা, কাঁচামরিচ ৪৫/৫০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া প্রতিটি সাইজ বুঝে ৩০/৪০ টাকা, জালি কুমড়া প্রতিটি ৮/১০ টাকা, কচু সাইজ বুঝে ২৫/৩০ টাকা, ডাটা প্রতি কুড়ি ৮/১০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

শিবপুর উপজেলার কোন্দারপাড়া গ্রামের কৃষক জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, লকডাউনের মধ্যে এখানকার উৎপাদিত সবজি রাজধানীসহ বিভিন্ন জেলায় সরবরাহ করতে না পারায় কৃষকদের বাধ্য হয়ে স্থানীয় বাজারে কম দামেই বিক্রি করতে হচ্ছে। প্রতিদিন নরসিংদী জেলার বিভিন্ন হাটবাজার থেকে শত শত ট্রাকযোগে সবজি সরবরাহ হত। কিন্তু লকডাউনের কারণে এখন ক্রেতা সাধারণরা সবজি নিতে আসছে না। ফলে পাইকারি সবজি বাজার এখন ক্রেতাশূন্য হয়ে পড়েছে। বাধ্য হয়েই কৃষকরা কম দামে স্থানীয় বাজারে সবজি বিক্রি করছে।

মিলন মিয়া নামে অপর এক কৃষক জানায়, সরকার কর্তৃক কৃষকদের প্রনোদনা না দিলে আগামীতে কেউ সবজি আবাদ করতে পারবে না। এ বছর যারা সবজি আবাদ করেছে প্রত্যক কৃষকই লোকসান গুণতে হয়েছে। কৃষকদের মধ্যে হায় হাপিত্যেশ বিরাজ করছে। স্থানীয় কৃষকদের দাবি, সরকার যেন লকডাউন বিবেচনায় কৃষকদের প্রণোদনা দেয়। অন্যথায় সবজি আবাদ থেকে মুখ ফিরিয়ে নেবে কৃষকরা এমনটিই আশঙ্কা করছেন অভিজ্ঞ মহল।

 

এমটিকে/বাংলারচোখ

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

আরও খবর...
© All rights reserved © 2021 | বাংলার চোখ নিউজ  
Theme Customized BY LatestNews