1. [email protected] : mainadmin :
  2. [email protected] : subadmin :
বাংলার চোখ | কোভিড-19 ডা. ওয়াজেদুর রহমান
বুধবার, ১৯ মে ২০২১, ০৬:০৮ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজঃ
অতিরিক্ত সচিবকে খামচি দিয়েছেন ও থাপ্পড় মেরেছেন রোজিনা: স্বাস্থ্যমন্ত্রী আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে সাংবাদিক রোজিনার গ্রেফতারের খবর ভারতে ঘূর্ণিঝড় টাউটির আঘাতে নিহত বেড়ে ২১, নিখোঁজ শতাধিক বজ্রপাতে প্রাণ গেল ১০ জনের রোজিনাকে হেনস্তার প্রতিবাদে ঢাকা দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় প্রেসক্লাবের নিন্দা ও কর্মসূচি ঘোষণা ‘স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে দু’দিন পরপর ভূতের আছর পড়ে’ রোজিনাকে গ্রেফতার নয়, পদক দেয়া উচিত : জাফরুল্লাহ চৌধুরী আপনার সঙ্গী একান্তে যে কথাগুলো শুনতে চান সাংবাদিক রোজিনা গ্রেফতার হওয়ায় তারকাদের প্রতিবাদ কর্মীর সঙ্গে সম্পর্কের তদন্ত শুরু হলে মাইক্রোসফট ছাড়েন বিল গেটস

কোভিড-19 ডা. ওয়াজেদুর রহমান

বাংলার চোখ সংবাদ
  • সময়ঃ রবিবার, ২৬ জুলাই, ২০২০

সাধারণ জনগণ অনেকে তর্ক জুড়ে দেন কেউ বলেন তোর করোনা হয়েছে,.. কেউ বলেন কোভিড আক্রান্ত হয়েছি ,..কেউ আবার বলে নভেল করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হয়েছে,.. আসুন জেনে নেই বিজ্ঞান কি বলে …. পৃথিবীতে এখন পর্যন্ত প্রায় 220 জাতএর ভাইরাস আবিষ্কৃত হয়েছে যারা কিনা মানুষ এর মধ্যে সংক্রমিত হতে পারে, 1901 সালে প্রথম ইয়েলো ফিভার ভাইরাস আবিষ্কৃত হয়. এখনো প্রতি বছরই দুই থেকে তিনটি নতুন নতুন প্রজাতি আবিষ্কৃত হচ্ছে. আমাদের আজকের আলোচ্য ভাইরাস এর নাম করোনা কেন হল সে প্রশ্নের জবাবে বিজ্ঞানীরা বলেন- ‘করোনা’ শব্দটি ল্যাটিন ভাষা হতে উৎপত্তি যার অর্থ মুকুট, কারণ দ্বিমাত্রিক ইলেকট্রন অণুবীক্ষণ যন্ত্রে ভাইরাসটির মাথায় মুকুটের মত স্পাইক বা কাটা দেখা যায়, তাই এর নামকরণ এরকম. করোনা ভাইরাস 1950-60 দশকে প্রথম আবিষ্কৃত হয়. প্রথমদিকে মুরগির মধ্যে এবং পরবর্তীতে মানুষের মধ্যে এই ভাইরাসটির দুটি জাত খুঁজে পাওয়া যায় .মানুষের মধ্যে খুঁজে পাওয়া ভাইরাস দুটির নাম হচ্ছে -মনুষ্য করোনাভাইরাস ‘229ই’ এবং ‘ওসি43’. এরপর থেকে বিভিন্ন সময় এই ভাইরাসটির আরো

 

কয়েকটি প্রজাতি পাওয়া যায়, যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য -2003 সালে ‘এসএআরএস -সিওভি’, 2005 সালে ‘এইচকেইউ1’,2012 সালে ‘এমইআরএস- সিওভি’ এবং বর্তমান এ চলমান সংক্রমণ ভাইরাস অর্থাৎ 2019 সালে ‘এসএআরএস- সিওভি 2 ‘. তবে 2003 সালে সার্স-কোভি বা সিভিয়ার একিউট রেসপিরেটরি সিনড্রোম এবং 2012 সালে মার্স-কোভি বা মেডেল ইস্ট রেসপিরেটরি সিনড্রোম- ছড়ানোর পর থেকে করোনাভাইরাস পৃথিবীময় পরিচিতি পায়. বর্তমানে পৃথিবীতে চলমান সংক্রমণ ভাইরাসটি করোনা ভাইরাসএর একটি নতুন জাত, তাই একে কেউ কেউ নভেল(নতুন) করোনাভাইরাস বলে ডাকেন, আবার যেহেতু এর উৎপত্তি হয় চীনে তাই চীনএর জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন প্রথম দিকে সাময়িকভাবে এর নাম প্রদান করেন ‘নভেল করোনাভাইরাস নিউমোনিয়া’ সংক্ষেপে ‘এনসিপি’ , আবার প্রথম দিকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এই ভাইরাসটি ‘2019-এনকভ’ নাম দেওয়ার সুপারিশ করেছিল ,তা পরবর্তীতে চিকিৎসা বিজ্ঞানীদের কাছে গ্রহণযোগ্যতা পায়নি . সর্বশেষ 2020 সালের ফেব্রুয়ারির প্রথম দিকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা(WHO) এই প্রাণঘাতী নতুন করোনাভাইরাস প্রজাতিটির নাম প্রদান করে COVID-19( কভিড-19). বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান তেদরস আদহানম এই নামকরণের ব্যাখ্যায় বলেন ভাইরাসটির নামের- CO দিয়ে করোনা, VI দিয়ে ভাইরাস,D দিয়ে ডিজিজ(রোগ) এবং 19 দিয়ে রোগটির উৎপত্তি সাল 2019 বোঝানো হয়েছে. এটাই ভাইরাসটির আনুষ্ঠানিক নাম. ক্ষতির সম্ভাবনার দিক থেকে করোনাভাইরাস বেশ বৈচিত্র্যময় এই ভাইরাসের কিছু প্রজাতি নিরীহ আবার কিছু প্রজাতি প্রাণঘাতী .বর্তমান প্রজাতি টি অবশ্যই প্রাণঘাতী, এছাড়াও চিন্তার বিষয় জেনেটিক মিউটেশনএর মাধ্যমে এটি দিন দিন তার রূপ বদলাচ্ছে. অতএব সবাই সতর্ক থাকুন ,স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন ,যতটা সম্ভব বাসায় থাকুন এবং নিরাপদে থাকুন. রোটারিয়ান ডা. আল- ওয়াজেদুর রহমান, এম বি বি এস ,এফ সি জি পি ,এম পি এইচ ,সি সি ডি, ই ডি সি(বারডেম) , বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতি স্বীকৃত ডায়াবেটিস চিকিৎসক, পরিচালক ,সিদ্ধিরগঞ্জ ডায়াবেটিস সেন্টার

সামাজিক মাধ্যমগুলোতে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

এই বিভাগের আরও খবর...
© All rights reserved © 2021 www.banglarchokhnews.com  
Theme Customized BY LatestNews