1. [email protected] : mainadmin :
  2. [email protected] : subadmin :
বাংলার চোখ | তাড়াশে সড়ক মেরামত কাজ বন্ধ, দুর্ভোগ চরমে
বৃহস্পতিবার, ০৬ মে ২০২১, ০৭:৩৯ পূর্বাহ্ন

তাড়াশে সড়ক মেরামত কাজ বন্ধ, দুর্ভোগ চরমে

বাংলার চোখ সংবাদ
  • সময়ঃ মঙ্গলবার, ৪ মে, ২০২১
সেলিম রেজা, স্টাফ রিপোর্টার (সিরাজগঞ্জ) :
সিরাজগঞ্জের তাড়াশে স্থানীয় সরকার প্রকৌশলী অধিদপ্তরের (এলজিইডি) তাড়াশ-নওগাঁ আঞ্চলিক সড়কের মেরামত কাজ শুরু করার পর দীর্ঘ দুই বছরের অধিক সময় ধরে বন্ধ রয়েছে। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রী ও চালকরা।
তাড়াশ এলজিইডি অফিসের হিসাবরক্ষক রেজাউল করিম বলেছেন, টেন্ডারে ঠিকাদারি কাজ পেয়ে ঢাকাস্থ ডলি কনস্ট্রাকশন লিমিটেড ২০১৮ সালের ১৫ নভেম্বর মাসে তাড়াশ-নওগাঁ আঞ্চলিক সড়কের খুটিগাছা মোড় থেকে নওগাঁ হাট পর্যন্ত ৯ দশমিক ০৯ কিলোমিটার সড়ক মেরামতের কাজ শুরু করেন। তখন শুধু সড়কের একপাশে এইজিং (৫ শতাংশ কাজ) করা হয়। বন্যা পুনর্বাসন প্রকল্পের আওতায় এ কাজের প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয় ৭ কোটি ৩৩ লাখ ৬২ হাজার ৮শ ৭৩ টাকা। কিন্তু চুক্তি মূল্য ছিল ৫ কোটি ৫৩ লাখ ৮৬ হাজার ৬শ ৮৮ টাকার। ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর মাসের ১৪ তারিখ ছিল মেরামত কাজের শেষ দিন। তিনি এ কথাও বলেন, এলজিইডি অফিসে ঠিকাদারের নাম ও মোবাইল নাম্বার নেই।
সরেজমিনে দেখা গেছে, তাড়াশ-নওগাঁ আঞ্চলিক সড়কের প্রায় ১০ কিলোমিটার জুড়েই খানাখন্দ। এ সড়কের মহিষলুটি বাজারের পরের ৪ কিলোমিটার অত্যন্ত লাজুক। সড়কের ওপর বড় বড় গর্তে পানি জমে আছে। কোথায় আবার কর্দমাক্ত অবস্থা। এমন বেহাল সড়ক দিয়েই চলছে ট্রাক, মাইক্রো বাস, সিএনজি, ভটভটি ও ইজি বাইকসহ সব ধরনের যানবাহন।
মহিষলুটি এলাকার সাকুয়াদিঘী গ্রামের বাসিন্দা ও স্থানীয় সাংবাদিক আব্দুস সালাম বলেন, তাড়াশ-নওগাঁ আঞ্চলিক সড়কটির অনেক বেশি গুরুত্ব রয়েছে। এ সড়ক দিয়ে মহিষলুটি হয়ে মানুষজন দেশের বিভিন্ন প্রান্তে যাওয়া-আসা করেন। তাছাড়া তাড়াশ তথা পার্শ্ববর্তী রায়গঞ্জ থানা, সলঙ্গা থানা, উল্লাপাড়া থানা, শাহজাদপুর থানা, ভাঙ্গুড়া থানা, চাটমোহর থানা, গুরুদাসপুর থানা ও বড়াই গ্রাম থানাসহ আরও দূরদূরান্তের হাজার-হাজার মানুষের সমাগম ঘটে তাড়াশের সাপ্তাহিক নওগাঁ হাটে। কিন্তু এ সড়ক দিয়ে যাতায়াতের সময় তাদের যে দুর্ভোগ পোহাতে হয় তা অবর্ণনীয়।
রমজান আলী নামে একজন বলেন, তার ট্রাকে বেপারীরা নওগাঁ হাটে গরু বেচতে এসেছেন। কিন্তু সড়ক যেন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। সড়কের এতটা বিধ্বস্ত অবস্থা আগে থেকে তার জানা থাকলে ভাড়ায় আসতেন না।
এ প্রসঙ্গে উপজেলা প্রকৌশলী মো. আবু সায়েদ বলেন, বিধি মোতাবেক আগের টেন্ডার বাতিল করত তাড়াশ-নওগাঁ আঞ্চলিক সড়ক মেরামতের জন্য পুনরায় টেন্ডার প্রক্রিয়ার প্রস্তুতি চলছে।

সামাজিক মাধ্যমগুলোতে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

এই বিভাগের আরও খবর...
© All rights reserved © 2021 www.banglarchokhnews.com  
Theme Customized BY LatestNews