বাংলার চোখ | ধোনিকে ‘কিংবদন্তি’ বললেন নরেন্দ্র মোদি
  1. [email protected] : mainadmin :
বাংলার চোখ | ধোনিকে ‘কিংবদন্তি’ বললেন নরেন্দ্র মোদি
বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ১২:০১ অপরাহ্ন

ধোনিকে ‘কিংবদন্তি’ বললেন নরেন্দ্র মোদি

বাংলার চোখ সংবাদ
  • সময় শুক্রবার, ২১ আগস্ট, ২০২০
  • ১০০ দেখেছেন

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে সম্প্রতি অবসর নিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। ভারতকে দুটি বিশ্বকাপ, একটি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি উপহার দেয়াসহ টেস্ট র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষে পৌঁছে দেন অধিনায়ক ধোনি।

মোদির পাঠানো সেই চিঠিটি হুবহু তুলে ধরা হল-

গত ১৫ আগস্ট আপনার স্বভাবসুলভ ভঙ্গিতে কাউকে কিছু বুঝতে না দিয়ে যে স্বল্পদৈর্ঘ্যের ভিডিও প্রকাশ করে অবসরের কথা জানালেন, তা এই মুহূর্তে গোটা দেশের কাছে আলোচনার বিষয়। ১৩০ কোটি ভারতীয় যা দেখে যেমন হতাশ, তেমনই কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন গত দেড় দশকে ভারতীয় ক্রিকেটে আপনার অবদানের জন্য।

ভারতীয় ক্রিকেটের অন্যতম সফল অধিনায়ক আপনি। বিশ্ব ক্রিকেটে ভারতকে শিখরে নিয়ে গিয়েছেন। ক্রিকেট ইতিহাসে আপনি থেকে যাবেন বিখ্যাত ব্যাটসম্যান, অধিনায়ক ও উইকেটকিপার হিসেবে। প্রতিকূল পরিস্থিতিতে আপনার প্রতি নির্ভরশীলতা ও ম্যাচ শেষ করার দক্ষতার জন্য আপনি প্রজন্মের পর প্রজন্ম দর্শকের হৃদয়েই থাকবেন। যেমন আপনি করেছিলেন ২০১১ সালে বিশ্বকাপ ফাইনালে। মহেন্দ্র সিংহ ধোনি নামটা কেবল পরিসংখ্যান বা ম্যাচ জেতানোর দক্ষতার বিচারে দেখা হলে অন্যায় হবে। আপনি একজন কিংবদন্তি।

ছোট শহরের এক মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে উঠে এসে আপনি ভারতকে গর্বিত করেছেন। যে উত্থান দেশের যুবসমাজকে বার্তা দিয়েছিল, বিখ্যাত স্কুল-কলেজ কিংবা পরিবার থেকে না এলেও প্রতিভা থাকলে সর্বোচ্চ স্তরে বিকশিত হওয়া যায়।

মাঠে আপনার স্মরণীয় অনেক মুহূর্ত দেশের একটি বিশেষ প্রজন্মকে প্রতিকূল পরিস্থিতিতে শান্ত মাথায় লড়াই করার শিক্ষা দিয়েছে। তারা দেখেছে, কঠিন মুহূর্তে তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে দিয়ে জয় ছিনিয়ে আনার সাহসী দৃশ্য। যার সবচেয়ে বড় উদাহরণ ২০০৭ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ফাইনাল।
আজ আমাদের যুবসমাজ প্রতিকূল পরিস্থিতির সম্মুখীন হলে ভয় পায় না। সবচেয়ে বড় ব্যাপার হল, তারা আপনার নেতৃত্বাধীন ওই দলের মতোই ভয়ডরহীন। মাথার কেশবিন্যাস যে রকমই হোক না কেন, জয়-পরাজয়ের সময় আপনার শান্ত মাথা অন্যদের কাছে দৃষ্টান্ত।

আশা করি, সাক্ষী ও জিভা এবার আপনার সঙ্গে বেশি সময় কাটাতে পারবে। ওদের ত্যাগ বা সহায়তা না থাকলে কোনো কিছুই সম্ভব হতো না। আপনার কাছ থেকে যুবসমাজ জানতে পারবে, পরিবার ও পেশার মধ্যে কীভাবে ভারসাম্য রেখে এগোতে হয়। মনে পড়ছে, একটা ম্যাচে ভারতের জয়ের পরে সবাই যখন আনন্দ-উৎসবে ব্যস্ত, আপনি তখন নিজের ফুটফুটে মেয়ের সঙ্গে খেলায় ব্যস্ত হয়ে পড়েছিলেন। আপনার সামনের জীবনের জন্য শুভকামনা জানাই।

প্রধানমন্ত্রীর চিঠি পেয়ে ধন্যবাদ জানিয়ে টুইটারে ধোনি লিখেছেন- একজন শিল্পী, সেনা বা ক্রীড়াবিদ স্বীকৃতি পেতে মুখিয়ে থাকেন তাদের কঠোর পরিশ্রম বা ত্যাগ স্বীকৃতির জন্যই। সেই স্বীকৃতি ও শুভেচ্ছা প্রদানের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ।

সামাজিক মাধ্যমগুলোতে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

এই বিভাগের আরও খবর...
© All rights reserved © 2021 www.banglarchokhnews.com  
Theme Customized BY LatestNews