1. [email protected] : mainadmin :
  2. [email protected] : Mohsin Molla : Mohsin Molla
  3. [email protected] : subadmin :
বাংলার চোখ নিউজ | অনলাইন সংস্করণ | পিরোজপুরের কাউখালীতে নদী ভাঙ্গন
শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ০৬:৪১ পূর্বাহ্ন

পিরোজপুরের কাউখালীতে নদী ভাঙ্গন

বাংলার চোখ সংবাদ
  • সময়ঃ রবিবার, ৬ জুন, ২০২১

নেওয়াজ শরীফ (পিরোজপুর সদর) উপজেলা প্রতিনিধি :

পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলার সন্ধ্যা, কঁচা ও কালীগঙ্গা নদীর ভাঙনে পাল্টে যাচ্ছে উপজেলার পশ্চিম ও পূর্বাঞ্চলের মানচিত্র। দীর্ঘদিন ধরে পশ্চিমাঞ্চলের সোনাকুর, হোগলা, বেতকা, সয়না, রঘুনাথপুর, রোঙ্গাকাঠী ও গন্ধর্ব এবং দক্ষিণ অংশের শিয়ালকাঠীর পাঙ্গাসিয়া, সুবিদপুর, বাদামতলা এলাকার বিস্তীর্ণ জনপদের নদী ভাঙন যেন থামছেই না।

ভাঙনের কবলে ইতিমধ্যে সোনাকুরের পালবাড়ি ও ঐতিহ্যবাহী মৃৎশিল্প নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। সহায় সম্বল হারিয়ে পথে বসেছে শত শত পরিবার। কোনো সহায়তা না পেয়ে ভাঙনকবলিত মানুষগুলো আশ্রয় নিয়েছে বিভিন্ন আবাসনে ও প্রতিবেশীর আঙিনায়। দীর্ঘ ২৫-৩০ বছর ধরে এ ভাঙনের ফলে পাল্টে গেছে মানচিত্র। ভাঙনকবলিত এলাকার শরীফ, সফিক, রেশমা আক্তার জানান, এক সময় তাদের সবকিছু ছিল কিন্তু আজ তারা অসহায়। কালীগঙ্গা পাড়ের মিলন পাল তার বাড়ির উঠানে ফাঁটল দেখিয়ে বলেন, ‘সামনে কতখানি জমি ছিল, তা রাক্ষুসাই নদীতে লইয়া গেছে।

এহন ঘুমানোর জায়গাও যাওয়ার পথে’ এলাকার উল্লেখযোগ্য সয়না পালবাড়ি, আমরাজুড়ী সিও রেভিনিউ অফিস, গন্ধর্ব ও মেঘপাল প্রাথমিক বিদ্যালয়টিও বিলীন হয়ে গেছে সন্ধ্যা নদীগর্ভে।

এ বিষয় কাউখালী উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নার্গিস আক্তার হাদিয়া বলেন, উপজেলার ২নং আমরাজুড়ী ইউনিয়নের আশোয়া গ্রাম, ৪নং চিরাপাড়া ইউনিয়ন, ৫নং শিয়ালকাঠী ইউনিয়নের পাঙ্গাশিয়া এলাকা ও বেকুটিয়া ফেরীঘাট এলাকা ভাঙনরোধে কয়েকবার মাটি দিয়ে ভরাট করা হয়েছে। কিন্তু নদীর উজানের পানির ঢলে আবার ভেঙে যাচ্ছে। উপজেলা চেয়ারম্যান আবু সাঈদ মিয়া জানান, নদী ভাঙা মানুষগুলো দূর্বিষহ জীবনযাপন করছে। ভাঙন রোধকল্পে সংশ্লিষ্ট বিভাগের সঙ্গে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের চেষ্টা চলছে।

 

এমটিকে/বাংলারচোখ

সামাজিক মাধ্যমগুলোতে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

এই বিভাগের আরও খবর...
© All rights reserved © 2021 www.banglarchokhnews.com  
Theme Customized BY LatestNews