1. [email protected] : mainadmin :
  2. [email protected] : special_reporter :
  3. [email protected] : subadmin :
বাংলার চোখ নিউজ | অনলাইন সংস্করণ | বন বিভাগের মামলা হলেও আসামী খুঁজে পাচ্ছে না বন বিভাগ
শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ০৭:১৬ অপরাহ্ন

বন বিভাগের মামলা হলেও আসামী খুঁজে পাচ্ছে না বন বিভাগ

বাংলার চোখ সংবাদ
  • সময়ঃ রবিবার, ৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২২

সাব্বির হোসেন :

বাগেরহাট জেলার শরণখোলা উপজেলার পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের ধানসাগর স্টেশন সংলগ্ন সুন্দরবনের গাছ কেটে সাবাড়ের ঘটনায় আসামী খুঁজে পাচ্ছে না বন বিভাগ। বন প্রহরীদের সহযোগিতায় প্রকাশ্যে ঘটনা ঘটলেও এখন আসামী খুঁজে না পাওয়ায় এলাকায় হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে উক্ত গাছ সাবাড়ের সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় নিজেদের সম্পৃক্ততা ঢাকতে তড়িঘড়ি করে একটি (ইউডিওআর) মামলা হয়েছে বনবিভাগের পক্ষ থেকে। ধানসাগর টহল ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সামিদুল হক বাদী হয়ে মামলাটি করেন, যার মামলা নং-০১ তারিখ ১৮-০১-২০২২।

তবে অন্য একটি সূত্র বলছে, ওই রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক (এসিএফ) এনামূল হক ও স্টেশন কর্মকর্তা আব্দুস সবুর পৃথকভাবে ওই (ওসি) সামিদুল হককে শোকজ করেছেন উক্ত ঘটনায় ।

তবে দুই টহল ফাঁড়ি সংলগ্ন ওই ঘটনা শুরু থেকেই ধামাচাপা দেওয়ার জন্য সেখানকার বন কর্মকর্তারা একে অপরের উপরে দায় চাপিয়েছেন।

উল্লেখ্য, গত ১৩ জানুয়ারী সকালে প্রকাশ্যে ধানসাগর সংলগ্ন কলমতেজী টহল ফাঁড়ির বন প্রহরীদের উপস্থিতিতে প্রায় ১০ টি রেনট্রি গাছ কাটা হয়।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় গাছগুলো বন বিভাগের সামজিক বনায়ন কর্মসূচীর গাছ। এলাকার একটি রাজনৈতিক পরিচয়ে চলা প্রভাবশালী একটি চক্র বন প্রহরীদের টাকা দিয়ে গাছগুলো সাবাড় করেছে বলে অভিযোগ করেন এলাকাবাসী। এই প্রতিবেদক কিছু গাছ কাটার প্রমানও পান। টাকার বিনিময়ে সুন্দরবনের গাছ সাবাড়ের ঘটনায় এলাকার মানুষ ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন।

টমটম চালক বেলাল বলেন, আমি নিজে ওই গাছ বহন করতে বাধ্য হয়েছি। এ ধরনের ঘটনা মানা যায় না। এ ঘটনার মূলহোতা বন প্রহরী রফিকুল ইসলাম নিজে দাঁড়িয়ে থেকে উত্তর রাজাপুর এলাকার প্রভাবশালী মৃতঃ মোশারেফ তালুকদার এর পুত্র আওয়ামী লীগ নেতা পরিচয়ে চলা কামাল তালুকদার এর নেতুত্বে তার চোরা-কারবারী চক্র ওই গাছ গুলো সুন্দরবন থেকে কেটে পাচার করে নেয় বলে প্রত্যাক্ষদর্শী ও গাছ বহন করতে বাধ্য হওয়া জাহিদুল হাওলাদার, শহিদুল হাওলাদার সহ আরো অনেকে জানান। তারা আরো জানান, শুধু রফিকুল ইসলামই নন এর সুবিধা নিয়ে থাকেন স্টেশন কর্মকর্তা আব্দুস সবুর সহ সেখানকার অন্যান্যরাও।

 

//এমটিকে

শেয়ার করুন...

আরও খবর...
© All rights reserved © 2021 | বাংলার চোখ নিউজ
Theme Customized BY LatestNews