1. [email protected] : mainadmin :
  2. [email protected] : subadmin :
বড়াইগ্রামে জোরপূর্বক জমির দখল নিতে আওয়ামীলীগ নেত্রীকে হয়রানীর অভিযোগ
বৃহস্পতিবার, ০৬ মে ২০২১, ০৬:২৬ পূর্বাহ্ন

বড়াইগ্রামে জোরপূর্বক জমির দখল নিতে আওয়ামীলীগ নেত্রীকে হয়রানীর অভিযোগ

আসাদুল ইসলাম আসমত
  • সময়ঃ সোমবার, ১২ এপ্রিল, ২০২১

বড়াইগ্রাম (নাটোর) সংবাদদাতাঃ

নাটোরের বড়াইগ্রামের বাগডোব বাজারে জোরপূর্বক আড়াই শতক জমি দখলে নিতে না পেরে দোকানপাট ভেঙ্গে নদীতে ফেলে দেয়া, নতুন ঘর নির্মাণে বাধাদানসহ আওয়ামীলীগ নেত্রীর নামে থানায় মিথ্যা অভিযোগ দায়েরের মাধ্যমে হয়রানীর অভিযোগ উঠেছে। রবিবার দুপুরে নিজ বাসভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বড়াইগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক রত্না খাতুন এসব অভিযোগ করেন। একই সঙ্গে তিনি নিজের জীবনের নিরাপত্তাসহ তাদের কেনা জমি ভূমিদস্যুদের হাত থেকে রক্ষা করতে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।

সচেতন বাগডোববাসীর ব্যানারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন আওয়ামীলীগ নেত্রী রত্না খাতুন। এ সময় রত্না খাতুনের শ্বাশুড়ি নুরজাহান বেগম, স্বামী মিলন আকন্দ, সমাজেসবক সোহরাব মোল্লা ও সজিব কুমার মাহাতোসহ গ্রামের বাসিন্দারা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য সুত্রে জানা যায়, আওয়ামীলীগ নেত্রী রত্না খাতুনের শ্বাশুড়ি নুরজাহান বেগম ১৯৯৯ সালে বাগডোব বাজারের ৩৬১ দাগে ইদ্রিস আলীর পৌনে পনের শতক জমির কাত থেকে দক্ষিণ-পশ্চিমাংশে রাস্তা সংলগ্ন ২.৫ শতক জমি কিনে ভোগ দখল করে আসছেন। অপরদিকে, বাগডোব গ্রামের রমিজ উদ্দিন এবং তার ভাই কবির উদ্দিন ১৯৮৮ সালে ইদ্রিস আলীর একই দাগে অবশিষ্ট জমি থেকে দক্ষিণ-পশ্চিমাংশে রাস্তাবাদ ১০ শতক জমি কিনে ভোগদখল করছেন। এ জমির অবশিষ্ট সোয়া দুই শতক জমি দিয়ে বাগডোব-তালশো রাস্তা চলমান রয়েছে। বর্তমানে নুরজাহানের কেনা জমিতে তার ছেলে মিলন টিনশেড ঘর করে পানের বরের খিলির ব্যবসা করে আসছিল। কিন্তু কিছুদিন যাবৎ কবির উদ্দিন ও তার ছেলে ও ভাতিজারা এ জমি ভোগদখলে নানা ভাবে বিঘ্ন সৃষ্টি করছে। এ ব্যাপারে একাধিকবার সালিশ মিটিং শেষে বড়াইগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান মমিন আলী ইউনিয়ন পরিষদের সার্ভেয়ারের মাধ্যমে মাপজরিপ করিয়ে যার যার জমি বুঝিয়ে দেন। তারপরও গত ৪ মার্চ রাতে রমিজ উদ্দিনের ছেলে আশরাফুল ইসলাম ও আতিক শাহরিয়ার, কবির উদ্দিন, তার ছেলে কাওসার ও সাদ্দাম হোসেন আওয়ামীলীগ নেত্রী রত্নার স্বামী মিলনের দোকানটি ভাংচুর ও লুটপাট করে। এ ব্যাপারে বর্তমানে মামলা চলমান আছে। এরপর মিলন পাকা ঘর করার জন্য সেখানে ইট বালি রাখলে গত ০৬ এপ্রিল সন্ধ্যার দিকে তারা পুনরায় সেগুলোও লুটে নেয়। অথচ এ ঘটনার পর প্রতিপক্ষরা উল্টো রত্না খাতুন ও তার স্বামী-শ্বাশুড়ির নামে থানায় রমিজ উদ্দিনের ছেলে আতিক শাহরিয়ারের মালিকানাধীন আতিয়া এন্টারপ্রাইজ ভাংচুর ও লুটপাটের মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করেছে। এ ঘটনার পর থেকে আওয়ামীলীগ নেত্রী রত্না খাতুন ও তার স্বজনরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন বলে জানান তারা। একই সঙ্গে মূলত এ জমি জবর দখল করতেই প্রতিপক্ষরা এভাবে নুরজাহান বেগম, তার ছেলে মিলন ও পুত্রবধু আওয়ামীলীগ নেত্রী রত্না খাতুনসহ স্বজনদের পুলিশ দিয়ে হয়রানী করাসহ জমিতে ঘর তুলতে বাধা দিচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন এবং এ ব্যাপারে প্রশাসনের যথাযথ ভূমিকা প্রত্যাশা করেন তারা।

এ ব্যাপারে বড়াইগ্রাম থানার ওসি আনোয়ারুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে এ ব্যাপারে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান।

সামাজিক মাধ্যমগুলোতে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

এই বিভাগের আরও খবর...
© All rights reserved © 2021 www.banglarchokhnews.com  
Theme Customized BY LatestNews