1. [email protected] : mainadmin :
  2. [email protected] : special_reporter : special reporter
  3. [email protected] : subadmin :
বাংলার চোখ নিউজ | অনলাইন সংস্করণ | মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি দালাল সিন্ডিকেটের দুই সদস্য রিমান্ডে
মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ১০:২৯ অপরাহ্ন

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি দালাল সিন্ডিকেটের দুই সদস্য রিমান্ডে

বাংলার চোখ সংবাদ
  • সময়ঃ রবিবার, ২০ জুন, ২০২১

কাজী আশরাফুল ইসলাম :

বছর জুড়ে মালয়েশিয়ায় মিডিয়ায় বাংলাদেশিদের নিউজ ফলাও করে ছাপা হয় আমাদের কৃতকর্মের জন্য। সততা ও পরিশ্রমি হিসাবে যেমন নাম আছে বাংলাদেশি শ্রমিকদের, ঠিক উল্টো পিঠে দালালদের প্রতারণা ও সিন্ডিকেটে বদনাম কামিয়েছে বাংলাদেশ। মালয়েশিয়ায় অবৈধদের বৈধকরণের নামে বাংলাদেশী শ্রমিকদের সাথে প্রতারনা ও বিভিন্ন ডকুমেন্টস জালিয়াতির দায়ে দুই বাংলাদেশী প্রবাসীকে গ্রেফতার করেছে দেশটির ইমিগ্রেশন বিভাগের পুলিশ। পরে আদালতের মাধ্যমে তাদের রিমান্ডে নেয়া হয়েছে।কুয়ালালামপুর লেবুহ আম্পাং থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এ সময় গ্রেফতারকৃতদের থেকে পাসপোর্টসহ বিভিন্ন ডকুমেন্টস উদ্ধার করা হয়।

শুক্রবার (১৮ জুন) সন্ধ্যায় মালয়েশিয়া ইমিগ্রেশন ডিপার্টমেন্ট এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানান মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগ। তবে পুলিশ গ্রেফতার দুই বাংলাদেশীর আংশিক ছবি প্রকাশ করলেও তাদের নাম ঠিকানা প্রকাশ করেনি তদন্তের স্বার্থে। দেশটির ইমিগ্রেশনের মহাপরিচাল দাতুক খায়রুল দাযাইমি দাউদ বলেছেন, গত মঙ্গলবার (১৫ জুন) জেআইএম পুত্রজায়ার গোয়েন্দা ও বিশেষ অপারেশন বিভাগ দ্বারা পরিচালিত এই অভিযানে রিক্যালিব্রেশন সিন্ডিকেটের মূল হোতা বাংলাদেশী দুইজনকে আটক করা হয়েছে। এদের মধ্যে একজনের বয়স ৩৮ এবং অপরজনের ৫৩ বছর। তারা অবৈধদের বৈধ করার প্রলোভন দেখিয়ে তাদের কাছ থেকে টাকা ও পাসপোর্ট হাতিয়ে নিত। অথচ রিক্যালিব্রেশনের জন্য ইমিগ্রেশন বিভাগ কোনো এজেন্ট নিয়োগ দেয়নি বলে জানিয়েছেন ইমিগ্রেশন ডিপার্টমেন্ট।

চলমান বৈধকরণ প্রক্রিয়ায় শর্ত অনুসারে বিদেশি শ্রমিকরা একমাত্র মালিকপক্ষের আবেদনে নিজে ইমিগ্রেশনে হাজির হয়ে এই বৈধকরণ করতে হবে। তাই কোনো এজেন্ট বা দালালের খপ্পরে না পড়ার জন্য পরামর্শ দেন ইমিগ্রেশন ডিপার্টমেন্ট।

প্রথমিক জিজ্ঞেসাবাদে জানা য়ায়, বৈধতা পেতে জনপ্রতি ১১০০ শত রিঙ্গিত থেকে ২৬০০ শত রিঙ্গিত এই সিন্ডিকেটে সদস্যরা নিত। পরবর্তীতে ডুব্লিকেট পেপার দিয়ে আরো ১০০০ হাজার রিঙ্গিত থেকে ১৫০০ শত রিঙ্গিত নিত। এই ভাবে প্রায় ২০০ শত জনের কাছ থেকে টাকা নিয়েছে সিন্ডিকেট সদস্যরা।

অভিযানের পরিচালনার সময় পুলিশ চারটি বাংলাদেশী পাসপোর্ট, চারটি বাংলাদেশী ভ্রমণের নথি যা বৈধকরণ কর্মসূচিতে ব্যবহার করা হয়েছিল বলে সন্দেহ করেছিল। এ সময় বিভিন্ন রাজ্যের মালয়েশিয়ার ইমিগ্রেশন অফিসের কয়েকডজন অনলাইন অ্যাপয়েন্টমেন্ট স্লিপ (এসটিও), পিকেপি মুভমেন্ট পারমিট লকডাউনে আন্তঃজেলা ভ্রমনের জন্য, বাংলাদেশ দূতাবাসের নথি এবং আটটি ব্যাংক কার্ড উদ্ধার করেছে।

এই গ্রেফতারে ২ বাংলাদেশীকে দেশটির অভিবাসন আইনের ১৯৫৯-এর ৬৩ ধারা এবং পাসপোর্ট আইন ১৯৬৬-এর অধীনে গ্রেফতার দেখিয়ে রিমান্ডে নেয়া হয়েছে এবং তদন্ত চলমান। ইমিগ্রেশন মহাপরিচালক বলেন এই বৈধতা কর্মসূচীতে আমরা কোন দালাল বা এজেন্সি কে নিয়োগ দেয়নি। অতএব আপনারও দালাল ও এজেন্টের সাথে সরাসরি ডিল করে প্রতারিত হবেনা।

 

এমটিকে/বাংলারচোখ

সামাজিক মাধ্যমগুলোতে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

এই বিভাগের আরও খবর...
© All rights reserved © 2021 | বাংলার চোখ নিউজ  
Theme Customized BY LatestNews