1. [email protected] : mainadmin :
  2. [email protected] : subadmin :
বাংলার চোখ | রূপগঞ্জে কৃষকের জমি রক্ষার্থে ড্রেজার উচ্ছেদ
রবিবার, ০৯ মে ২০২১, ১০:১৭ অপরাহ্ন

রূপগঞ্জে কৃষকের জমি রক্ষার্থে ড্রেজার উচ্ছেদ

পারভেজ আহমেদ
  • সময়ঃ রবিবার, ১১ এপ্রিল, ২০২১

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার কায়েতপাড়া ইউনিয়নের নগড়পাড়া এলাকায় কৃষি জমি রক্ষার্থে ভূমিদস্যুদের ড্রেজার উচ্ছেদ করেছে।

১০ এপ্রিল শনিবার সকাল ১০ ঘটিকায় নগরপাড়া গ্রামে কেরানীগঞ্জ মৌজায় জোরপূর্বকভাবে বালু ভরাট করার জন্য ড্রেজার বসালে নগরপাড়া, খামারপাড়া, উত্তরপাড়া ও নয়ামাটির এলাকাবাসী ক্ষিপ্ত হয়ে ড্রেজার ও পাইপ উঠিয়ে নদীতে ফেলে দেয়। পরে ড্রেজারটি নদীর পাড় থেকে অন্যত্রে সরিয়ে দেয় ।

এলাকাবাসী জানায়, আমাদের একমাত্র উপার্জন হলো কৃষি কাজের উপর। আমাদের এই কৃষি খেতে এবার ধান ভালো জন্মেছে। এই ধান ১৫ দিনের মধ্যে পেকে যাবে। আর সেই ধান ক্ষেতে ভূমি দস্যুরা জোড়পূর্বক ভাবে বালু ভরাটের জন্য ড্রেজার বসায়।

আমাদের কৃষি জমি রক্ষার জন্য আমরা মাঠে নেমেছি। আমরা আমাদের বাপ-দাদার ও আমাদের কৃষি জমিতে ভালু ভরাট করতে দিমু না। আমাদের কৃষি জমি ছাড়া আর কোনো কিছু নাই। কৃষি জমিতে বালু ভরাট করলে আমরা আমাদের পরিবার নিয়ে না খেয়ে মরব।

তাই আমরা মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে বলতে চাই আমাদের নগরপাড়া, খামারপাড়া, উত্তরপাড়া ও নয়ামাটি গ্রামের কেরানীগঞ্জ মৌজার কৃষি জমি ভূমিদস্যুদের হাত থেকে রক্ষা করুন। কৃষকরা আরো জানায়, প্রতি বছর এক বিঘা জমিতে ত্রিশ থেকে চল্লিশ মন ধান হয় । এখন ধান পাইক্কা গেছে। আমরা পনের দিন পর ধান কাটমু। সেই জাগার মধ্যে ভূমিদস্যুরা আমাদের কৃষি জমিতে জোড়পূর্বকভাবে বালু ভরাট করতাছে।

আমরা আমাদের এমপি গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক সাহেব ও দেশ নেত্রী শেখ হাসিনার কাছে বলছি, আমরা কীভাবে বাঁচমু, আমরা কীভাবে এলাকায় বাস করমু আপনারা একটু আমাদের দিকে খেয়াল করেন, আমাদের বাঁচান।

যেই ভূমিদস্যু এলাকাতে ঢুকছে আমাদের কোনো বংশই থাকবে না। আপনারা আমাদের বাপ-দাদার ভিটার মধ্যে থাকতে দেন। আমরা কোনো কিছু চাইনা, আমরা বিদেশী হতেও চাইনা, আমরা আমাদের বাপ-দাদার ভিটায় মরতে চাই। আমাদের কৃষি জমিতে বালু ভরাট যেন না করে সে ব্যবস্থা করেন।

এদিকে কায়েতপাড়া ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের মেম্বার মাসুম আহম্মেদ সাংবাদিকদের জানান, এই খানে ১ শতাংশ জমিও ক্রয় করে নাই। তারা এখানে বালু ভরাট করতে পারবে না। আমি এ বিষয়ে চেয়ারম্যানের সাথে কথা বলব। আর এখন চেয়ারম্যান দেশে নাই তার ছোট ভাই মিজান ও কৃষি জমির মালিকদের সাথে কথা বলেই বালু ভরাট করবে।

আর জনগণের উপরে কিছুই নাই, জনগণ যদি চায় বালু ভরাট করবে আর যদি না চায় তাহলে ভালু ভরাট বন্ধ করে দিবে। এ ঘটনায় রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জসিম উদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

সামাজিক মাধ্যমগুলোতে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

এই বিভাগের আরও খবর...
© All rights reserved © 2021 www.banglarchokhnews.com  
Theme Customized BY LatestNews