1. [email protected] : mainadmin :
  2. [email protected] : subadmin :
বাংলার চোখ | রূপগঞ্জে জোড়পূর্বক জমি দখলের পায়তারা
বৃহস্পতিবার, ০৬ মে ২০২১, ০৭:২১ পূর্বাহ্ন

রূপগঞ্জে জোড়পূর্বক জমি দখলের পায়তারা

বাংলার চোখ সংবাদ
  • সময়ঃ শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২১

বাংলার চোখ নিউজ :

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার কাঞ্চন পৌরসভার রানীপুরা এলাকায় জোড়পূর্বক জমি দখলের পায়তারা করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ১৬ এপ্রিল শুক্রবার রানীপুরা গ্রামের মৃত জমির উদ্দিন মিয়ার ছেলে শাহজাহান মিয়া বাংলার চোখকে বলেন, আমার দখলীয় জমি রানীপুরার গ্রামের মৃত আঃ আজিজ মিয়ার ছেলে দেলোয়ার মিয়া (৪০) ও মঞ্জুর মিয়া (৫৫) অনেক দীর্ঘ দিন ধরে জোড়পূর্বক ভাবে আমার জমি থেকে বেদখলের চেষ্টা করে আসছে। তারা গত ২২ মার্চ ২০২১ ইং তারিখ সকাল ৮ ঘটিকা সময় রানীপুরার গ্রামের মৃত আঃ আজিজ মিয়ার ছেলে দেলোয়ার মিয়া (৪০) ও মঞ্জুর মিয়া (৫৫) ও তার সাথে আরো ৪/৫ জন অজ্ঞাত লোক দলবদ্ধভাবে হাতে দেশীয় দা, ছুরি, রড ও লাঠি-সোটা নিয়ে এসে আমাদের দখলীয় সম্পত্তিতে জোড়পূর্বকভাবে একটি টিনের ঘর নির্মাণ করতে আসে। পর আমি তাদেরকে ঘর নির্মাণে বাধা দিলে তারা আমাকে সাথে আনা দা, ছুরি, রড ও লাঠি-সোটা দিয়ে খুন করার চেষ্টা করে। আমি আমার জীবন বাঁচাতে চিৎকার করলে আমার আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে আসলে। দেলোয়ার মিয়া, মঞ্জুর মিয়া তার সাথে আরো ৪/৫ জন লোক আমাকে জীবনে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দিয়ে চলে যায়। শাহজাহান মিয়া তার দখলীয় জমির বিষয়ে সাংবাদিকদের জানায়, কাঞ্চন পৌরসভার কাঞ্চন মৌজার সাবেক খতিয়ান নং- ১৪০০, হালে ১৮৫৭, আর এস- ১০২৩নং খতিয়ান ভূক্ত। সিএস ও এস এ ২৫১, আর এস-৪৩২ নং দাগে মোট জমি ছিল ৪০ শতাংশ তার মধ্যে আমার পিতা জমির উদ্দিন ২০ শতাংশ জমি মালিক ও ভোগদখল থাকাবস্থায় আমাকেসহ আমার বোন শরিফা বেগমকে বৈধ ওয়ারিশ রাখিয়া মৃত্যুবরণ করে। পরে আমি হারাহারিভাবে পৈতৃক ওয়ারিশ সূত্রে ১৪ শতাংশ এবং আমার বোন ৬ শতাংশ সম্পত্তি মালিক থাকাবস্থায় আমার বোন তার প্রাপ্প সম্পত্তি ৬ শতাংশ জনৈক মোঃ ফিরোজ ভূঁইয়ার কাছে বিক্রি করে। পরে ফিরোজ ভূইয়া তার ক্রয়ক্রিত ০৬ শতাংশ সম্পত্তি বিগত ০১ মার্চ ২০২০ইং তারিখে জনৈক দেলোয়ার মিয়ার নিকট বিক্রি করেন। পরবর্তীতে আমি আমার পৈতৃক প্রাপ্ত ১৪ শতাংশ জমিতে পূর্ব হইতে উত্তর পাশে ঘর-বাড়ি দখলে থাকিয়া চৌহুদ্দি নির্ণয় করে বিগত ০৮ আগষ্ট ২০১০ইং তারিখে আমার ছেলে রাসেল মিয়া, ফয়সাল মিয়া ও লালন মিয়াকে ৩০৬৩৪ নং হেবা ঘোষনা পত্র দলিলে রেজিষ্ট্রি করিয়া দেই। পরে আমার ছেলেরা তাদের নামে নামজারী ও জমাভাগ করে সরকারী খাজনা পরিশোধ করে শান্তিপূর্ণভাবে ভোগ দখল করে আসছে। আর এ বিষয়ে আমি শাহজাহান মিয়া ২২ মার্চ ২০২১ তারিখে থানায় একটি অভিযোগ করি।

সামাজিক মাধ্যমগুলোতে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

এই বিভাগের আরও খবর...
© All rights reserved © 2021 www.banglarchokhnews.com  
Theme Customized BY LatestNews