1. [email protected] : mainadmin :
  2. [email protected] : subadmin :
বাংলার চোখ | লাখো পুণ্যার্থীর আগমনে মুখরিত হওয়া লাঙ্গলবন্দ ঘাটগুলো প্রায় জনশূন্য
সোমবার, ১০ মে ২০২১, ০৪:১৭ পূর্বাহ্ন

লাখো পুণ্যার্থীর আগমনে মুখরিত হওয়া লাঙ্গলবন্দ ঘাটগুলো প্রায় জনশূন্য

মোঃ শামীম
  • সময়ঃ বুধবার, ২১ এপ্রিল, ২০২১

স্টাফ রিপোর্টার :

প্রতিবছরের ন্যায় পঞ্জিকা ধারা অনুযায়ী ২০ এপ্রিল (মঙ্গলবার) এই দিনে মহাতীর্থ অষ্টমী স্নান হওয়ার কথা থাকলেও মহামারি মরণব্যাধি করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে কারনে গত বছরের ন্যায় মহাসমারোহে এবারও হয়নি।

লাঙ্গলবন্দ মহাতীর্থ স্থানে নেই কোনো পুণ্যার্থী, যেখানে ঘাটেঘাটে ‘ ঔ ব্রহ্মপুত্র মহাভাগে, উচ্চারিত হয়নি সম-সুরে এই মন্ত্র উচ্চারণ। লাখো পুণ্যার্থীর ব্রহ্মপুত্রের পবিত্র জলে অবগাহন করেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা।

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মিলন মেলা- এই হচ্ছে লাঙ্গলবন্দের স্নান উৎসব। সেখানে শূন্য স্থানে পরিনত হয়েছে। চৈত্রের শুক্লাষ্টমীতে জগতের সকল পবিত্র স্থানের পুণ্য ব্রহ্মপুত্রে মিলিত হয়। নদীর জল স্পর্শ মাত্রই সকলের পাপ মোচন হয় এই হল সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বিশ্বাস।

মহাতীর্থ লাঙ্গলবন্দ নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁ উপজেলার গা ঘেষেঁ প্রবাহিত আদি ব্রহ্মপুত্রের সাড়ে তিন কিলোমিটার এলাকা জুড়ে অবস্থিত। লাঙ্গলবন্দে বর্তমানে মোট ১৬ টি ঘাট রয়েছে।এই ঘাটগুলির পাশা-পাশি সেখানে রযে়ছে ১০ টি মন্দির ও কযে়ক টি আশ্রম উল্লেখ্য ললিত সাধুর আশ্রম, রাজঘাট, প্রেমতলা ঘাট ও মাকরি সাধুর ঘাট।

তাছাড়া একসময় ঐতিহাসিক লাঙ্গলবন্দের ওপর দিয়ে প্রবাহিত আদি ব্রহ্মপুত্র নদ ছিল বিশাল স্রোত।ধীরে ধীরে ক্ষীণকায় হতে থাকে আদি ব্রহ্মপুত্র।

তাই বলে এই মহাতীর্থের মহিমা কিন্তু এতোটুকু ম্লান হয়নি। এখানে পুণ্যস্নানের জন্য সমবেত হণ লক্ষ লক্ষ সনাতন ধর্মাবলম্বী নর নারী।

দাপুর যুগে পরশুরাম অবতার ধারা এই মহাতীর্থের আবির্ভাব ঘটে।

সামাজিক মাধ্যমগুলোতে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

এই বিভাগের আরও খবর...
© All rights reserved © 2021 www.banglarchokhnews.com  
Theme Customized BY LatestNews