1. [email protected] : mainadmin :
  2. [email protected] : Mohsin Molla : Mohsin Molla
  3. [email protected] : subadmin :
বাংলার চোখ নিউজ | অনলাইন সংস্করণ | সিলেটের জৈন্তাপুরে ধ্বংসের মুখে জীববৈচিত্র্য
শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ০৬:৩৩ পূর্বাহ্ন

সিলেটের জৈন্তাপুরে ধ্বংসের মুখে জীববৈচিত্র্য

বাংলার চোখ সংবাদ
  • সময়ঃ রবিবার, ৬ জুন, ২০২১

আবুল কাশেম রুমন (সিলেট) প্রতিনিধি :

মানুষের সর্বগ্রাসী লোভ আর সর্বনাশা কর্মকান্ডের কারণে পরিবেশ মারাত্বক বিপর্যয়ের মুখোমুখি হয়ে পড়েছে। পরিবেশের মাটি, পানি, বাতাস সবকিছুই আজ দূষিত হয়ে উঠেছে। পাহাড়-টিলা কাটা আর অবাধে বন ধ্বংসের কারণে হুমকির মুখে পড়েছে জীববৈচিত্র্য। শুধু আইন দিয়ে এ অবস্থা থেকে পরিত্রাণ অসম্ভব । এজন্য সর্বশ্রেণির মানুষের সচেতনতা ও জাগরণ ছাড়া পরিবেশের বিপর্যয় সম্ভব নয়।

বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক ’নাগরিক বন্ধনে বক্তারা একথা বলেন। বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন-বাপা সিলেট জেলা শাখা ও সারি নদী বাঁচাও আন্দোলন’র যৌথ উদ্যোগে ৪ জুন শুক্রবার বিকেলে জৈন্তাপুরের ঐতিহাসিক বটতলায় এ নাগরিক বন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। বিশিষ্ঠ মুরব্বি আব্দুস শুকুর এর সভাপতিত্বে ও সারী নদী বাচাও আন্দোলনের সভাপতি আব্দুল হাই আল হাদির সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত এ নাগরিক বন্ধনে প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন-বাপার কেন্দ্রিয় সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল করিম কিম।

বক্তারা আরো বলেন উন্নয়নের নামে পরিবেশ ধ্বংসের মহোৎসব চলছে। পাহাড় টিলা কাটা হচ্ছে অবাধে বৃক্ষ নিধন করা হচ্ছে, নদি দখল, দূষন ও ভরাট করা হচ্ছে।জলাভূমি ধ্বংস করে অপরিকল্পিত ভাবে অবকাঠামো তৈরী করা হচ্ছে। কিন্তু এগুলো প্রতিরোধে কেন কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে না। বক্তারা আরো বলেন, পরিবেশ সংরক্ষণের জন্য আইনের কোন অভাব নেই। কিন্তু সেসব আইনের দৃশ্যমান ও কার্যকরি পদক্ষেপ নেই বললেই চলে। তাই পরিবেশের বিপর্যয় রোধে সাধারণ মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে। সাধারণ মানুষের জাগরণ ছাড়া কোন ভাবেই পরিবেশ রক্ষা করা যাবেনা। সরকার কিংবা জনপ্রতিনিধিগণ উন্নয়ন কাজ করবেন তা জনগনও প্রত্যাশা করেন। কিন্তু উন্নয়নের নামে পরিবেশ অধিদপ্তরের কোন রকম ছাড়পত্র ছাড়া অবাধে পাহাড়-টিলা কাটা, বৃক্ষ নিধন, নদী দখল সহ বিভিন্ন রকম পরিবেশ বিরোধী কাজ চলছে।

জৈন্তাপুর উপজেলা সদর থেকে গোয়াবাড়ী রাস্তা প্রসস্থ্যকরণ কাজে রাস্তার দু-পাশে পাহাড় কাটা হচ্ছে এবং বাপা’র উদ্যোগে বটতলার নাগরিক বন্ধন চলাকালে প্রায় ১০/১৫টি ট্রাক পাহাড় কাটা মাটি নিয়ে যেতে দেখে উপস্থিত বক্তারা উদ্বেগ প্রকাশ করেন। এব্যাপারে প্রশাসনের সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেন। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক মনোজ কুমার সেন, জৈন্তাপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি উপাধ্যক্ষ শাহেদ আহমদ, জৈন্তাপুর প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক গোলাম সরওয়ার বেলাল, জৈন্তাপুর প্রেস ক্লাবের সহ সভাপতি আব্দুল হালিম, খাসি কমিউনিটি নেতা এন্ড্রু স্মীথ খংলা, সাংবাদিক শাহজাহান কবির খান, ফটো সাংবাদিক হোসেন মিয়া, শিক্ষক শাহজাহান সাজু প্রমূখ।

 

এমটিকে/বাংলারচোখ

সামাজিক মাধ্যমগুলোতে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

এই বিভাগের আরও খবর...
© All rights reserved © 2021 www.banglarchokhnews.com  
Theme Customized BY LatestNews