1. [email protected] : mainadmin :
  2. [email protected] : subadmin :
বাংলার চোখ | স্বাধীনতা পদক পেলেন গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক
শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ০৮:১৯ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজঃ
‘লকডাউন’ এখনো কার্যকর হয়নি সর্বত্র ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ১০১ জনের মৃত্যু করোনায় দেশে প্রথম শতাধিক লোকের মৃত্যু নরসিংদী জেলা পরিষদ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা সামগ্রী জেলা হাসপাতালে হস্তান্তর শরীয়তপুরে পূর্বশত্রুতার জেরে যুবককে কুপিয়ে হত্যা রূপগঞ্জের চনপাড়ায় ছাত্রলীগ নেত্রীর বাড়িতে হামলা-ভাংচুর-লুটপাট-শ্লীলতাহানী সিলেটের গোলাপগঞ্জে মন্দিরে তরুণীকে ধর্ষণের চেষ্টা,গ্রেফতার ১ তালতলা হইতে বারদী রাস্তার সংস্কার কাজে চরম দূর্নীতির অভিযোগ এলাকাবাসীর লকডাউন! বাঁধা দেওয়া কি সঠিক হচ্ছে? প্রশ্ন সচেতন মহলের ৩০ বছর পর পিডিবি’র কাছ থেকে জায়গা পেলেন ফেঞ্চুগঞ্জের একরাম আলী

স্বাধীনতা পদক পেলেন গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক

বাংলার চোখ সংবাদ
  • সময় বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর, ২০২০
  • ৮৫ দেখেছেন

বাংলার চোখ সংবাদ :

জাতীয় জীবনে গৌরবোজ্জ্বল ও কৃতিত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ স্বাধীনতা পুরস্কার-২০২০ গ্রহণ করলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা সমিতির সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ-১ আসনের এমপি বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক।

২৯ অক্টোবর) সকালে স্বাধীনতা পুরস্কার-২০২০ প্রদান করা হয়। প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে স্বাধীনতা পুরস্কার প্রাপ্তদের হাতে পদক ও সম্মাননা পত্র তুলে দেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে যুক্ত হয়ে অনুষ্ঠানে অংশ নেন।

আজ স্বাধীনতা পুরস্কারপ্রাপ্তদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘প্রত্যেকটা মানুষ যখন একটা সমাজের জন্য, একটি জাতির জন্য, একটি দেশের জন্য অবদান রাখে, তাদের একটা সম্মান করা, গুণীজনের সম্মান করা, এটা মনে করি আমাদের কর্তব্য।’

পুরস্কারপ্রাপ্ত মনোনীত বিশিষ্ট ব্যক্তিদের নাম ঘোষণা ও সংক্ষিপ্ত জীবনী পাঠ করেন অনুষ্ঠানের সঞ্চালক খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। প্রথমে স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধে অবদানে জন্য পুরস্কার গ্রহণ করেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক।

এর আগে রাষ্ট্র গোলাম দস্তগীর গাজীকে মুক্তিযুদ্ধে বীরত্বপূর্ণ অবদানের জন্য বীর প্রতীকের খেতাব দেয়। আর এবার দেশের স্বাধীনতা অর্জনে এই বীরযোদ্ধার অবদানের প্রতি সম্মান জানালো জাতি। তিনি এবার অর্জন করলেন স্বাধীনতা পুরস্কার। এছাড়া ২০১৮ সালে সমাজসেবামূলক কার্যক্রমে অবদান রাখার জন্য আন্তর্জাতিক মাদার তেরেসা পদকে ভূষিত করা হয় তাকে। বর্তমানে সরকারের বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন গোলাম দস্তগীর গাজী।

গোলাম দস্তগীর গাজী ছাত্রজীবনে রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত হন। মুক্তিযুদ্ধ শুরু হওয়ার সময় বিএসসি পাস করে সবেমাত্র আইন কলেজে ভর্তি হয়েছিলেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সে সময় দেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করে সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের ডাক দেওয়ার পরপরই আরও কয়েকজনের সঙ্গে ভারতে চলে যান গোলাম দস্তগীর গাজী। সেখানে প্রাথমিক প্রশিক্ষণ শেষে দেশে ফেরেন ও সম্মুখযুদ্ধে অংশ নিতে শুরু করেন। তিনি মুক্তিযুদ্ধের ২নং সেক্টরে বিভিন্ন সম্মুখ যুদ্ধে বীরত্বের সঙ্গে অংশ নেন। তিনি ছিলেন মুক্তিযুদ্ধের সময় গঠিত ক্রাক প্লাটুনের অন্যতম সদস্য। রাজধানী ঢাকাকে শত্রুমুক্ত করতে কয়েকটি সফল অপারেশনে অংশ নেন গোলাম দস্তগীর গাজীসহ এই প্লাটুনের সদস্যরা। জীবন বাজি রেখে তিনি ও সহযোদ্ধারা রাজধানীর বুকে বিভিন্ন স্থাপনায় সশস্ত্র অপারেশন পরিচালনা করেন। যা সে সময়ের হানাদার পাকিস্তানি বাহিনীর ভিত কাঁপিয়ে দেয়।

মুক্তিযুদ্ধের পর নিজেকে ব্যবসা-বাণিজ্যে সম্পৃক্ত করেন। ধীরে ধীরে সফলতা পেতে শুরু করে গাজী গ্রুপ নামে তার প্রতিষ্ঠিত শিল্প গ্রুপ। দেশে ব্যবসা-বাণিজ্য খাতে অত্যন্ত সম্মানীয় এই গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক দেশের শ্রেষ্ঠ করদাতাদের একজন। আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে তার রয়েছে সক্রিয় ভূমিকা ও দায়িত্বশীল অবদান। তারই ধারাবাহিকতায় তিনি নিজ নির্বাচনি এলাকা নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ থেকে তিন দফা সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ২০১৮ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বঙ্গবন্ধুকন্যা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ টানা তৃতীয় দফা সরকার গঠন করলে তাকে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেওয়া হয়। অত্যন্ত সুনামের সঙ্গে এই দায়িত্ব তিনি পালন করে চলেছেন।

এরপর মরহুম কমান্ডার (অব.) আবদুর রউফ প্রদান করা হয়। তার পক্ষে তার কন্যা গীতালি হাসান পুরস্কার গ্রহণ করেন। পরবর্তীতে মরহুম মুহম্মদ আনোয়ার পাশা ও আজিজুর রহমান; চিকিৎসাবিদ্যায় অধ্যাপক ডা. মো. উবায়দুল কবীর চৌধুরী ও অধ্যাপক ডা. এ কে এম এ মুক্তাদির, এবং সংস্কৃতিতে কালীপদ দাস ও ফেরদৌসী মজুমদার। এ ছাড়া শিক্ষায় অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে টাঙ্গাইলের মির্জাপুরের ভারতেশ্বরী হোমস এবার স্বাধীনতা পুরস্কারপ্রাপ্ত হয়।

স্বাধীনতা পুরস্কার প্রাপ্তদের মধ্যে অধ্যাপক ডা. এ কে এম এ মুক্তাদির অনুভূতি প্রকাশ করেন। প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে স্বাধীনতা পুরস্কার প্রাপ্তদের হাতে তুলে দেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন মন্ত্রীপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

গণভবন প্রান্তে প্রধানমন্ত্রীর মূখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউসসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সামাজিক মাধ্যমগুলোতে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

এই বিভাগের আরও খবর...
© All rights reserved © 2021 www.banglarchokhnews.com  
Theme Customized BY LatestNews
error: Content is protected !!